ফরিদপুরে উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বাল্যবিবাহ বন্ধ-বরের ৩মাস জেল


মোঃ ইনামুল হাসান মাসুম: ফরিদপুর সদর উপজেলার আওতাধীন মাচ্চর ইউনিয়নের জয়দেবপুর গ্রামে উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে মঙ্গলবার দিবাগত রাতে বাল্যবিবাহ থেকে রক্ষা পেল স্কুলের ৯ম শ্রেনীতে পড়ুয়া এক শিক্ষার্থী।

সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাসুম রেজার নির্দেশনায় ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) শাহ্ মোঃ সজীব এই বাল্যবিবাহ বন্ধ করেন। এ দিকে বাল্যবিবাহের আয়োজন করার দায়ে বর ও কনের অভিভাবকদের জেল ও জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমান আদালত।

উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার সদর উপজেলার মাচ্চর ইউনিয়নের জয়দেবপুর গ্রামে নবম শ্রেণির এক ছাত্রীর সঙ্গে এই এলাকার এক কিশোরের বাল্যবিবাহের আয়োজন করা হয়। খবর পেয়ে দুপুরে বর ও কনের বাড়িতে যান উপজেলা প্রশাসনের একটি বিশেষ টিম। এরপরে তাদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট শাহ্ মোঃ সজীব বাল্যবিবাহ বন্ধ করে দেন। এ সময় বর মোঃ জনি মল্লিক (২৫) কে ৩ মাসের কারাদণ্ডাদেশ দেন ভ্রাম্যমান আদালত। কনের অভিভাবক হিসেবে তার আম্মাকে নগদ অর্থদণ্ড দেওয়া হয়েছে এবং মুচলেকা নিয়ে মেয়ে পক্ষকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাসুম রেজা জানান, বাল্যবিয়ে একটি দণ্ডনীয় অপরাধ। যারাই এ অপরাধের সাথে যুক্ত থাকবেন তাদের আইনের মাধ্যমে বিচার করা হবে। বাল্যবিবাহ রোধে ফরিদপুর জেলা ও উপজেলা প্রশাসন সচেষ্ট রয়েছে।

সহকারী কমিশনার (ভূমি) শাহ্ মোঃ সজীব বলেন, সামাজিক এই ব্যাধি নিরোধে সবার সচেতন হওয়া জরুরি। সমাজের সচেতন জনগোষ্ঠীকে বাল্যবিবাহ অনুষ্ঠানের তথ্য দাপ্তরিক মোবাইল ফোন বা ফেসবুক ইনবক্সে করে উপজেলা প্রশাসনকে সহায়তা করার আহবান জানান এসি ল্যান্ড। সকলের সহযোগিতার মাধ্যমে এ অভিশাপ থেকে মুক্ত হবে আমাদের সমাজ। বাল্যবিয়ে রোধে তাদের এই অভিযান অব্যাহত থাকবে।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *