ফরিদপুরে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে নিবেদিত প্রাণ সদর ইউএনও মাসুম রেজা


নিজস্ব প্রতিবেদক:
বৈশ্বিক মহামারিতে রূপ নেওয়া মরনঘাতি করোনা ভাইরাস সংক্রমন, নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধে ফরিদপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মাসুম রেজার দায়িত্বশীল কর্মতৎপরতা উপজেলার সর্বমহলে প্রশংসিত হয়ে উঠেছেন।

উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকায় অভিযান অব্যাহত রেখেছেন নিবেদিত প্রাণ এ ইউএনও। জানা গেছে, মহামারী করোনা ভাইরাস সংক্রমন রোধ ও সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সচেতনতা সৃষ্টি, বিশ্বের অন্যান্য দেশের মত বাংলাদেশে করোনা পরিস্থিতি আতংকে পরিনত হওয়ার সাথে সাথে জেলা প্রশাসক অতুল সরকারের নির্দেশনায় ইউএনও মোঃ মাসুম রেজা পর্যায়ক্রমে উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের সকল হাট-বাজার, বাস স্টেশন, গ্রামীন জনগুরুত্বপূর্ণ স্থান ও বিভিন্ন সড়ক-উপসড়কে মাইকিং করে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সচেতনতামূলক বার্তা প্রচার শুরু করেন।

প্রতিটি বাজারের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পৌঁছানোর পর হ্যান্ড মাইক হাতে নিয়ে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করে অভিযান পরিচালনা করেন এবং নির্দিষ্ট সময়ে সমস্ত দোকান পাট বন্ধ থাকবে শুধু মাত্র ওষুধের ফার্মেসি ও কীটনাশকের দোকান খোলা থাকবে বলে নির্দেশনা প্রদান করেন। স্বাস্থ্যবিধি মতে ৩ ফুট দূরত্ব বজায় রেখে এবং মুখে মাস্ক ব্যবহার করে কাজ সমাধান করে বাসায় ফিরতে হবে, জরুরী প্রয়োজন ছাড়া কেউ বাসা থেকে বের হবেন না। আপনার সুস্থতার উপর নির্ভর করবে দেশের সুস্থতা।

ফরিদপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মাসুম রেজা জানান, সদর উপজেলায় যোগদানের পর থেকে সরকারি প্রজাতন্ত্রের একজন কর্মচারি হিসেবে অর্পিত দায়িত্ব পালন করছি মাত্র। করোনা পরিস্থিতিতেও সরকারি নির্দেশনা মতে কাজ করে যাচ্ছি, সারাদেশের ইউএনও-এসিল্যান্ডসহ সরকারি কর্মকর্তারা যেভাবে কাজ করছে আমিও সেভাবে কাজ করছি। বেশী কিছু করছি বলে মনে হয়না। চলমান করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় সেনাবাহিনী, বিজিবি, জনপ্রতিনিধি, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারি, পুলিশ প্রশাসনের কর্মকর্তা, সাংবাদিকসহ অনেকে সার্বিক সহাযোগিতা দিয়ে যাচ্ছেন। এজন্য তিনি সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।

ইউএনও আরো বলেন, করোনা ভাইরাস নিয়ে সাধারণ মানুষ আতংকিত। ফরিদপুর সদর উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে রিক্সা চালক, শ্রমিক, খেটে খাওয়া মানুষ, অতি ক্ষুদ্র ব্যবসায়িদের অনেকেই আর্থিক সংকটে পড়তে পারে। সংকটময় এ মুহুর্তে তাদের সাহায্যে সরকারের পাশাপাশি সবাইকে স্বতঃস্ফূর্তভাবে এগিয়ে আসা দরকার। তিনি করোনা সংক্রমন রোধে সবাইকে বাড়িতে অবস্থান করারও অনুরোধ জানান।

সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি মুহাম্মদ আল-আমিন জানান, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাসুম রেজা স্যার অত্যন্ত পরিশ্রমী ও চৌকস একজন কর্মকর্তা। তিনি করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে সার্বক্ষনিক খোঁজ খবর নিচ্ছেন এবং উপজেলার বিভিন্ন প্রান্তে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ভূমিকা পালনসহ উপজেলার প্রতিটি মানুষের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিতে সার্বক্ষণিক খোঁজ খবর ও প্রয়োজনীয় সহযোগিতা প্রদান করে যাচ্ছেন। ইউএনও মাসুম রেজা ফরিদপুর সদর উপজেলা প্রশাসন পরিবারকে একটি আদর্শ ও অনুকরণীয় জায়গায় পৌঁছে দিয়েছেন।

কানাইপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফকির মোঃ বেলায়েত হোসেন জানান, ফরিদপুরে ইউএনও মাসুম রেজা স্যার যোগদানের পর থেকেই রাত-দিন সদর উপজেলা বাসীর জন্য নিবেদিতপ্রাণ হয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। এমন নিষ্ঠাবান-কর্মঠ ও মানবিক গুণাবলী সম্পন্ন ইউএনও সদর উপজেলা বাসী অতীতে খুব কম পেয়েছে। করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় তিনি ফরিদপুরে যে ভূমিকা পালন করে যাচ্ছেন তাও নজিরবিহীন। তাঁর কর্মকান্ডে মনে হচ্ছে তিনি কেবল ইউএনও নন, ফরিদপুর সদর উপজেলার একজন সচেতন অভিভাবকও।

স্বেচ্ছাসেবী মোঃ ইনামুল হাসান মাসুম জানান, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সরকার শুরু থেকেই সতর্ক অবস্থানে ছিলো। সিভিল প্রশাসনকে কাজে লাগিয়ে জনসচেতনতা মূলক কর্মকান্ড চালিয়ে আসছিলেন। সেক্ষেত্রে ফরিদপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাসুম রেজা একটি অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত। ফরিদপুর উপজেলার জনগণকে সুরক্ষিত রাখতে এবং করোনা ভাইরাস বিস্তাররোধে তিনি নানামুখী কর্মকান্ড শুরু থেকে প্রতিনিয়ত অব্যাহত রেখেছেন। তিনি দিবারাত্রি নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। ইউএনও কে সার্বক্ষণিক সহযোগিতা দিয়ে যাওয়ার জন্য ফরিদপুরের জনবান্ধব জেলা প্রশাসক মহোদয় ও প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সহ সাংবাদিকদের তিনি আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *