ফরিদপুরে জমি ও গৃহ প্রদান কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন উপলক্ষে ডিসির প্রেস ব্রিফিং


জিল্লুর রহমান রাসেল, ফরিদপুর:

মুজিববর্ষ উপলক্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে আগামী ২০ জুন ২০২১ খ্রি. তারিখ জমি ও গৃহ প্রদান কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন উপলক্ষে এক প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১৯ জুন শনিবার বেলা ১২ টায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এই প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর প্রদান করেন ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার।

সংবাদ সম্মেলনে জেলা প্রশাসক অতুল সরকার জানান, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আজন্ম লালিত স্বপ্ন ছিল বাংলার গরীব দুঃখী নিঃস্ব মানুষের মুখে হাসি ফোটাবার। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু ১৯৭২ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি নোয়াখালী জেলার (বর্তমানে লক্ষ্মীপুর) চরপোড়াগাছা গ্রাম পরিদর্শন করেন এবং গৃহহীন মানুষের জন্য গৃহ নির্মাণের নির্দেশ প্রদান করেন। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানের ১৫ নং অনুচ্ছেদ অনুযায়ী জনগণের জন্য আশ্রয়ের উপকরণের ব্যবস্থা করা রাষ্ট্রের অন্যতম মৌলিক দায়িত্ব। বাংলাদেশের ইতিহাসে প্রথম এধরনের উদ্যোগ গৃহীত হয়।

জাতির পিতার এই স্বপ্ন পূরণের লক্ষ্যে মুজিব শতবর্ষে “বাংলাদেশের একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এ ঘোষণা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আগামী ২০.০৬.২০২১ তারিখ রবিবার সকাল ১০.৩০ টায় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারা দেশে ২য় পর্যায়ে ৫৩ হাজার ০৩ শত ৪০ টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ০২ শতাংশ জমিসহ গৃহ হস্তান্তর কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন করার সদয় সম্মতি জ্ঞাপন করেছেন।

স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী ও মুজিব বর্ষ উপলক্ষে এই প্রকল্পের আওতায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ১ম পর্যায়ে ৬৯,৯০৪টি ভূমিহীন এবং গৃহহীন পরিবারকে গৃহ প্রদান করেছেন। ডিসেম্বর ২০২১ এর মধ্যে আরও ১লক্ষ গৃহহীন পরিবারকে গৃহ প্রদান করার পরিকল্পনা রয়েছে। এখানে উল্লেখ্য যে, আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় (শ্রেণী-ক) দেশের ২,৯৩,৩৬১টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে গৃহ প্রদান করা হবে। সারা দেশের ন্যায় ফরিদপুর জেলার ০৯ টি উপজেলায় আশ্রয়ণ-২ প্রকল্প হতে ২য় পর্যায়ে ১৫৭২ টি পরিবারের নিকট মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে কবুলিয়ত, জমির খতিয়ান, গৃহ প্রদানের সনদসহ ঘরের চাবি হস্তান্তর কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন করবেন।

জেলা প্রশাসক উল্লেখ করেন, ১৫৭২ টি পরিবারের মধ্যে ফরিদপুর সদর ১৫৩টি, সদরপুর ৩৭০টি, সালথা ২০০টি, মধুখালী ৪০টি, আলফাডাঙ্গা ২৩০টি, বোয়ালমারী ১৩০টি, নগরকান্দা ১১০টি, চরভদ্রাসন ২০০টি এবং ভাঙ্গা উপজেলায় ১৩৯টি গৃহ বরাদ্দ প্রদান করা হবে। এর মধ্যে আলফাডাঙ্গা উপজেলায় গৃহহীন ও ভূমিহীনদের জন্য “স্বপ্ননগর” নামে নতুন একটি গ্রাম সৃজন করা হয়েছে।

ফরিদপুরে ১ম পর্যায়ে ২০৩৫ টি পরিবারের মধ্যে গৃহ প্রদান করা হয়েছে। এ জেলায় ১ম ও ২য় পর্যায়ে এ পর্যন্ত মোট ৩৬০৭ টি পরিবারকে ০২ শতাংশ জমিসহ গৃহ প্রদান করা হলো। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মাননীয় মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী, উপ-মন্ত্রী, সংসদ সদস্য, বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসক, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, স্থানীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, বীর মুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিকবৃন্দ, জনপ্রতিনিধিবৃন্দসহ সর্বস্তরের জনসাধারণ অংশগ্রহণ করবেন। ২য় পর্যায়ে ১৫৭২ টি গৃহহীন ও ভূমিহীন পরিবার পাবে তাঁদের স্বপ্নের আশ্রয়স্থল। ফলে ঐ পরিবারের সকল সদস্য হয়ে উঠবেন আত্নপ্রত্যয়ী এবং খুঁজে পাবেন নিজের পায়ে দাড়ানোর অবলম্বন।

১৫৭২ টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার যারা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার গ্রহণ করবেন তাদের শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কর্মসংস্থানসহ সকল ধরণের সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে প্রত্যেক উপজেলায় অধিকাংশ ক্ষেত্রে ঘরগুলোর স্থানীয় গ্রোথ সেন্টারের নিকটবর্তী স্থানে স্থাপন করা হয়েছে। প্রয়োজনীয় বিদ্যুৎ সুবিধা ও বিশুদ্ধ খাবার পানি উপজেলা প্রশাসনের মাধ্যমে নিশ্চিত করা হয়েছে। এ মহৎ উদ্যোগের মাধ্যমে পর্যায়ক্রমে ফরিদপুর জেলার তালিকাভূক্ত সকল গৃহহীন পরিবারের মধ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে গৃহ নির্মাণ করে দেয়া হবে; যার ফলশ্রুতিতে ফরিদপুরের একটি পরিবারও গৃহহীন থাকবে না।

গৃহ নির্মাণ কাজে সহযোগিতা করার জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবং প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সদস্যসহ উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির সকল সদস্যকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করা হয়।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে ফরিদপুরের পুলিশ সুপার মোঃ আলীমুজ্জামান, স্থানীয় সরকারের উপপরিচালক মোহাম্মদ আসলাম মোল্লা, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) দীপক কুমার রায়, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোসাঃ তাসলিমা আলী, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মাসুম রেজা, ফরিদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি মোঃ কবিরুল ইসলাম সিদ্দিকীসহ বিভিন্ন প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক ও অনলাইন গণমাধ্যমের সংবাদকর্মীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *