ফরিদপুরে দরিদ্র রিকশা চালকের মেয়ের বিবাহের ব্যবস্থা করলো তরুছায়া ফাউন্ডেশন


মোঃ ইনামুল হাসান মাসুম:
ফরিদপুর পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের একজন দরিদ্র রিকশা চালকের তিনটি কন্যা সন্তান রয়েছে, যার মধ্যে বড় মেয়েটি বিবাহের উপযুক্ত হওয়ায় তার পরিবার শালথা উপজেলার গট্টি ইউনিয়নের এক ছেলের সাথে তার বিবাহ ঠিক করেন। অর্থের অভাবে তার মেয়ের বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা করতে পারছিলো না।

বিষয়টি তরুছায়া’র একজন প্রতিনিধীর দৃষ্টিতে আসলে তিনি যাবতীয় খোজ খবর নিয়ে তাকে আশ্বস্ত করেন যে দরিদ্র রিকশা চালক বাবার মেয়ে বিবাহের সকল ব্যবস্থা আমরা সামাজিক সংগঠন তরুছায়া ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে করবো।

তরুছায়া ফাউন্ডেশনের সদস্য ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের আন্তরিক প্রচেষ্টা এবং সার্বিক সহযোগীতায় মেয়ের বিবাহ অনুষ্ঠান সম্পন্ন করার জন্য খাবারের যাবতীয় বাজার সদাই, কনের স্বর্ণালংকার, লেপ, তোশক, বালিশ ও নগদ ২০ হাজার টাকা প্রদান করা হয় বলে জানান সংগঠনটির সভাপতি খালিদ মাহমুদ সজীব।

রিকশাচালক সেলিম জানান, আমার বড় মেয়ের বিবাহ ঠিক হওয়ার পরে টাকার অভাবে আমি আমার মেয়ের বিয়ের আয়োজন করতে পারছিলাম না। পরে আমি তরুছায়া ফাউন্ডেশনে সাহায্য চেয়ে একটি আবেদন করি তারপর তারা আমার মেয়ের বিবাহের আয়োজনের যাবতীয় সবকিছুই প্রদান করে। এতে দরিদ্র রিকশা চালক সেলিম তরুছায়ার সকল সদস্যদের প্রতি বিশেষ কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

উক্ত বিবাহের যাবতীয় ব্যবস্থা গ্রহনে সার্বিক সহযোগিতা করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক তানভীর সাকিব, সহঃ সম্পাদক হুজ্জাতুল ইসলাম ত্বহা, প্রচার সম্পাদক মোঃ ইনামুল হাসান মাসুম, রাহুল খন্দকার, সাখাওয়াত হোসেন শুভ সহ আরো অনেকেই।

সংগঠনের প্রচার সম্পাদক মোঃ ইনামুল হাসান মাসুম জানান, মেয়েটির ভবিষ্যত ও আত্ন সম্মানের কথা বিবেচনা করে আমরা তার বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হওয়ার সকল প্রকার আনুষ্ঠানিকতার ছবি ও পরিচয় প্রকাশ করছিনা।